বাঘাবাড়ী ঘি উৎপাদন অব্যাহত রাখায় জরিমানা

Post Iamge

Advertise

বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইন্সটিটিউশনের (বিএসটিআই) পরীক্ষায় নিুমান প্রমাণিত হওয়া ৫২টি পণ্যের মধ্যে ‘অনিল ঘোষের বাঘাবাড়ী স্পেশাল গাওয়া ঘি’ রয়েছে। হাইকোর্ট এ ৫২টি পণ্য উৎপাদন বন্ধ রাখার পাশাপাশি বাজার থেকে তুলে নেয়ার নির্দেশ দিলেও বাঘাবাড়ী ঘি উৎপাদন অব্যাহত রেখেছিল।

রোববার দুপুরে রাজধানীর গোড়ানে অবস্থিত বাঘাবাড়ী ঘিয়ের কারখানায় অভিযান চালিয়ে দশ লাখ টাকা জরিমানা এবং কারখানাটি সিলগালা করে দেন র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম।

র‌্যাব-৩ এর সহায়তায় অভিযানটি পরিচালনা করা হয়েছে। অভিযানে বিএসটিআই’র একটি দলও ছিল।

র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম জানান, হাইকোর্টের নির্দেশ অমান্য করে অনিল ঘোষের বাঘাবাড়ী স্পেশাল গাওয়া ঘি কর্তৃপক্ষ পণ্য উৎপাদন এবং বাজারজাত অব্যাহত রেখেছে।

পাশাপাশি কোনো ধরনের মান নিয়ন্ত্রণ না করেই ঘি উৎপাদন করা হচ্ছিল। এ কারণে প্রতিষ্ঠানটিকে দশ লাখ টাকা জরিমানা এবং কারখানা সিলগালা করে দেয়া হয়েছে।

র‌্যাব জানায়, অনিল ঘোষের বাঘাবাড়ী স্পেশাল গাওয়া ঘি কারখানায় নষ্ট ঘি সংরক্ষণ করে রাখা হয়েছে। বিভিন্ন জারে নিুমানের ঘি রাখা হয়েছে। হাজার হাজার ঘিয়ের খালি বোতল রাখা ছিল কারখানায়।

হাইকোর্টের নির্দেশের পরও ঘি উৎপাদন অব্যাহত ছিল। তাছাড়া প্রস্তুতকৃত অনেক ঘি প্যাকেট ভর্তি করে সারি সারি করে রাখা হয়েছিল। এগুলো বাজারজাত করার জন্যই প্রস্তুত করা হয়েছে।

তবে বাঘাবাড়ী ঘিয়ের স্বত্বাধিকারী অনিল ঘোষ দাবি করেন, বাবুর্চি কারখানায় এসে দু’এক কার্টন মাল হয়তো দিয়েছে। আমরা কোনো ঘি উৎপাদন করছি না। কোনো ঘি বাজারজাত করা হচ্ছে না। কোনো ধরনের বিক্রি আমাদের নেই।

সম্পর্কিত পোস্ট

Add Comment

অন্যান্য সংবাদ