তিন নম্বর পজিশনই পছন্দ সাকিবের

Post Iamge

Advertise

ক্যারিয়ারের সিংহভাগ ম্যাচে ৫ নম্বরে ব্যাট করেছেন সাকিব আল হাসান। তবে বাংলাদেশি অলরাউন্ডারকে ইদানীং তিন নম্বরে নামতে দেখা যাচ্ছে। এই পজিশনে ১৩ ওয়ানডেতে ৪১.০০ গড়ে ৪৯২ রান করেছেন সাকিব। ক্যারিয়ার গড়ের (৩৫.৪৫) তুলনায় যা বেশিই। আর বিশ্বকাপে তিন নম্বর পজিশনেই ব্যাট করতে চান সাকিব। বাঁহাতি এই স্পিনিং অলরাউন্ডার বলেন, ‘ব্যক্তিগতভাবে আমি মনে করি, আগে নামতে পারাটাই ভালো। আমি তিন নম্বরে ব্যাট করতে চাই। কোচ এবং অধিনায়ককে আমার ইচ্ছার কথা জানিয়েছি।তবে দলের প্রয়োজনে আমি যে কোনো পজিশনে ব্যাট করতে রাজি।’ 
আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজ নিয়ে এখন ব্যস্ত বাংলাদেশ দল। প্রথম ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বল হাতে ১০ ওভারের স্পেলে ৩৩ রানে ১ উইকেট নেন সাকিব। এরপর ব্যাট হাতে ওয়ান ডাউনে নেমে অপরাজিত ৬১ রানের ইনিংস খেলে বাংলাদেশকে সহজ জয় এনে দেন তিনি। ওয়ান ডাউনে ব্যাট করতে চাওয়ার ব্যাখ্যায় সাকিব কৌতুক করে বলেন, ‘একটা সময় ছিল যখন প্রথম ১০ ওভারের মধ্যেই ৩-৪ উইকেট পড়ে যেত। তখন পাঁচ নম্বরে আমি ক্রিজে আসতাম। এখন পরিস্থিতি ভিন্ন। পাঁচ নম্বরে ব্যাটিংয়ে নামতে চাইলে ৩৫-৪০ ওভারের আগে নামতে পারবো না।’
এ মন্তব্যে সাকিব বাংলাদেশ দলের প্রশংসাই করলেন। শুধু সাকিব নয়, গত দু-তিন বছরের ওয়ানডে পরিসংখ্যান দেখলে যে কেউই বাংলাদেশের প্রশংসা করবে। গত বছর ওয়ানডেতে ২০ ম্যাচে ১৩ জয় দেখে টাইগাররা। তালিকায় বাংলাদেশের উপরে কেবল ইংল্যান্ড আর ভারত। ইংল্যান্ড ২৪ ম্যাচে ১৭ আর ভারত ২০ ম্যাচে জিতেছে ১৪টি। ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে তাই বাংলাদেশকে একেবারে গণনার বাইরে রাখছে না ক্রিকেট  বোদ্ধারা। বাংলাদেশও চমক দেখাতে চায়। বিশ্বকাপের আগে আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে নিতেই আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলছে টাইগাররা। ত্রিদেশীয় সিরিজে বাংলাদেশের পরবর্তী ম্যাচ আগামী শনিবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। সিরিজে প্রথম সাক্ষাতে ২৬২ রানের টার্গেটে আট উইকেটের সহজ জয় পায় টাইগাররা। ওপেনিংয়ে ১৪৪ রানের জুটি গড়েন তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার। উভয়েই পূর্ণ করেন ব্যক্তিগত অর্ধশতক (তামিম ৮০, সৌম্য ৭৩)। বিদেশের মাটিতে ওয়ানডেতে বাংলাদেশের ওপেনিংয়ে সর্বোচ্চ রানের জুটি এটি।  ২ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে তিন দলের মধ্যে সবার উপরে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল। আজ পয়েন্ট তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে থাকা উইন্ডিজ খেলবে স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে। আবহাওয়া স্বাভাবিক থাকলে ম্যাচটি শুরু হবে পূর্ব নির্ধারিত সময় বিকাল পৌনে ৪টায়। সরাসরি সম্প্রচার করবে মাছরাঙা ও গাজী টিভি। দুই ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ৫ পয়েন্ট। প্রথম সাক্ষাতে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ১৯৯ রানে জয় দেখে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ওই ম্যাচে জোড়া সেঞ্চুরি করেন দুই ক্যারিবীয় ওপেনার জন ক্যাম্পবেল ও শেই হোপ। ওপেনিংয়ে তারা গড়েন রেকর্ড ৩৬৫ রানের জুটি। 
সিরিজে প্রথম সাক্ষাতে বাংলাদেশের পেস আক্রমণের বিপক্ষে সাবলীল ব্যাটিংয়ে চোখ রাঙাচ্ছিল ক্যারিবীয়রা। ওপেনিং জুটিতে উইন্ডিজের স্কোর বোর্ডে জমা পড়ে ৮৯ রান। তবে ১৬.২তম ওভারে ওপেনার সুনীল অ্যামব্রিসকে সাজঘরে ফিরিয়ে জুটি ভাঙেন অফস্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ। পরের ওভারেই ক্যারিবীয় ওয়ানডাউন ব্যাটসম্যান ড্যারেন ব্রাভোর উইকেট তুলে নেন সাকিব আল হাসান। পরে তিন পেসার মাশরাফি (৩) সাইফউদ্দিন (২), মোস্তাফিজ (২) ক্যারিবীয়দের সাত উইকেট ভাগাভাগি করলে ২৬১ রানেই শেষ হয় উইন্ডিজের ইনিংস। জবাবে ২৬তম ওভারের শেষ বলে সৌম্য সরকারের বিদায়ে ব্যাট হাতে ক্রিজে যান সাকিব আল হাসান। দ্বিতীয় উইকেটে তামিম ইকবালের সঙ্গে গড়েন ৫২ রানের জুটি। দলীয় ১৯৬ রানে সাজঘরে ফেরেন তামিম। পরে মুশফিকুর রহীমের সঙ্গে ম্যাচজয়ী অবিচ্ছিন্ন ৬৮ রানের জুটি গড়েন সাকিব। তিন নম্বরে ব্যাট হাতে ৬১ বলে ৬১ রানের ইনিংসে সাকিব হাঁকান তিনটি চার ও দুটি ছক্কা। জয় শেষে দলের স্পিন আক্রমণকে কৃতিত্ব দেন সাকিব আল হাসান।

সম্পর্কিত পোস্ট

Add Comment

অন্যান্য সংবাদ