চলে গেলেন আনিস

Post Iamge

Advertise

চলে গেলেন বিশিষ্ট কৌতুক অভিনেতা আনিসুর রহমান আনিস। রোববার রাত ১১টায় তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে টিকাটুলির নিজ বাসায় ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি... রাজিউন)। তার ছোট মেয়ের স্বামী মো. আলাউদ্দিন শিমুল খবরটি মানবজমিনকে নিশ্চিত করেছেন। আনিসের বয়স ছিল ৭৮ বছর। চার বছর আগে তার স্ত্রী মারা যান। আনিসের দুই মেয়ে। একজন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় আর অন্যজন ঢাকায় থাকেন। গতকাল সকাল ৯টায় টিকাটুলি জামে মসজিদে জানাজা শেষে আনিসের মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় তার দীর্ঘদিনের কর্মস্থল এফডিসিতে।সেখানে তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানানো এবং দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আলমগীর, মিশা সওদাগর, ওমর সানী, ড্যানি সিডাক, খোরশেদ আলম খসরু, অপূর্ব রানা প্রমুখ। এরপর তার মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় জন্মস্থান ফেনী জেলার ছাগলনাইয়া উপজেলার বল্লবপুর গ্রামে। সেখানে আরেকবার জানাজা শেষে বাদ মাগরিব পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। আনিস বাংলা চলচ্চিত্রের এক অনবদ্য অভিনেতার নাম। তিনি চার শতাধিক চলচ্চিত্র এবং অসংখ্য রেডিও ও টিভি নাটকে অভিনয় করেছেন। উদয়ন চৌধুরীর ‘বিষকন্যা’ চলচ্চিত্রে প্রথম অভিনয়ের সুযোগ পেয়েছিলেন আনিস। এই চলচ্চিত্রে ‘আহ একটা কথা বুঝ না কেন নানী, ঐ মাইয়া আমাগো ঘরে আইলে কপাল খুইলা যাইবো’ সংলাপটিতে 
অভিনয় করেছিলেন তিনি।  কিন্তু সে সময় ছবির ক্যামেরাম্যান পরিচালককে বললেন, ‘এই মাল কোত্থেকে আনছেন আপনি, না আছে গলা, না আছে চেহারা’। এই কথা শুনে আনিস পালিয়ে আসেন। পরে জিল্লুর রহিমের ‘এইতো জীবন’ চলচ্চিত্রে অভিনয় দিয়ে শুরু হয় তার অভিনয় জীবন। এটি ১৯৬৪ সালে মুক্তি পায়। 
আনিস একাধারে একজন চলচ্চিত্রাভিনেতা, বেতারশিল্পী এবং নাট্যাভিনেতা ছিলেন। তাকে টিভিতে অভিনয়ের সুযোগ করে দিয়েছিলেন কলিম শরাফী। আবার রেডিওতে অভিনয় করার সুযোগ করে দিয়েছিলেন খান আতাউর রহমান। দীর্ঘ অভিনয় জীবনে নায়কদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি কাজ করেছেন আনিস নায়করাজ রাজ্জাক, ফারুক ও শাকিব খানের সঙ্গে। নায়িকাদের মধ্যে তিনি সবচেয়ে বেশি কাজ করেছেন শবনম, 
সুজাতা, শাবানা ও শাবনূরের সঙ্গে। আনিস সর্বশেষ 
অভিনয় করেছেন উত্তম আকাশ পরিচালিত ‘যেমন জামাই তেমন বউ’ চলচ্চিত্রে। তার অভিনীত অন্যান্য চলচ্চিত্রের মধ্যে রয়েছে ‘এই তো জীবন’, ‘পয়সে’, ‘মালা’, ‘জরিনা সুন্দরী’, ‘জংলী মেয়ে’, ‘মধুমালা’, ‘ভানুমতি’, ‘পদ্মা নদীর মাঝি’, ‘সূর্য ওঠার আগে’, ‘অধিকার’ ‘অঙ্গার’, ‘বারুদ’, ‘ঘর সংসার’, ‘এমিলের গোয়েন্দা বাহিনী’, ‘পুরস্কার’ ‘লাল কাজল’, ‘নির্দোষ’, ‘সানাই’, ‘উজান ভাটি’, ‘তালাক’ ইত্যাদি। তিনি জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ইত্যাদির অনেক পর্বেও অভিনয় করেছেন।

সম্পর্কিত পোস্ট

Add Comment

অন্যান্য সংবাদ