ওয়াহাব রিয়াজের ভোরবেলার স্বপ্ন সত্যি হয়েছে!

Post Iamge

Advertise

২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির পর কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেননি ওয়াহাব রিয়াজ। সেই ক্রিকেটারই পাকিস্তানের চূড়ান্ত বিশ্বকাপ স্কোয়াডে ডাক পেয়েছেন। স্বাভাবিকভাবেই হতবাক হয়েছেন অনেকে।

এ নিয়ে ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে তুমুল হইচই। কেউ কেউ বলছেন, স্বজনপ্রীতি করেছেন পাকিস্তানি নির্বাচকরা। তবে ওয়াহাব বলছেন ভিন্নকথা। তার বিশ্বাস- ১০ দিন আগে ভোরবেলায় দেখা স্বপ্ন সত্যি হয়েছে।

তিনি বলেন, আমি মিকি আর্থার ও সরফরাজ আহমেদকে স্বপ্নে দেখেছি। দেখেছি তারা আমাকে দলে নিচ্ছেন। আবার বেরও করে দিচ্ছেন।

রিয়াজ বলেন, ১০ দিন আগে আমি স্বপ্নে দেখি ইনজি ভাই (প্রধান নির্বাচক ইনজামাম) আমাকে ফোন করে বলছেন, শেষ সুযোগটা পাচ্ছ। শেষ পর্যন্ত সেটাই সত্যি হয়েছে। উত্থান-পতনের মধ্য দিয়ে যাওয়া একজন ক্রিকেটারের জন্য এর চেয়ে ভালো কী হতে পারে?

আন্তর্জাতিক ম্যাচ না খেললেও ঘরোয়া ক্রিকেটে নিয়মিত পারফরমার ওয়াহাব। সবশেষ ঘরোয়া আসরে পাঁচ ম্যাচে ১০ উইকেট নিয়ে হন টুর্নামেন্টসেরা। ইংল্যান্ডে খেলার অভিজ্ঞতাও তাকে নির্বাচকদের বিবেচনায় এনেছে। ডার্বিশায়ারের হয়ে ইংলিশ কাউন্টি ক্রিকেট টি-টোয়েন্টি ব্লাস্টে খেলেন তিনি।

তবু সমালোচনা হচ্ছে। তবে মুখে জবাব না দিয়ে মাঠের পারফরম্যান্স দিয়ে সেটি বুঝিয়ে দিতে চান তিনি।

বাঁহাতি গতি তারকা বলেন, গেল দুই বছর আমি অনেক পরিশ্রম করেছি। সবসময় চেয়েছি দলে ফিরতে। এক ম্যাচের পারফরম্যান্স দিয়ে কাউকে বিচার করা যায় না। একজন বোলার এক ম্যাচে ৬০, ৭০, ৮০ রান দিতেই পারে। আমার ক্ষেত্রেও সেটি ঘটেছে। এর মানে এই নয় যে, আমি ফুরিয়ে গেছি। এখনও গতি ঠিক আছে, সুইংও করাতে পারি।

সম্পর্কিত পোস্ট

Add Comment

অন্যান্য সংবাদ